১০৫ বছরের বৃ’দ্ধ বরের মুখে কো’টি টাকা’র হাসি, গ্রা’মজু’ড়ে আ’নন্দ

‘এ বয়সে বিয়ে?’ প্র’শ্নটা যে’কেউ কর’তে পারেন। তবে এ’কাকী’ত্ব কা’টাতে দুই বৃদ্ধের বি’য়ের সিদ্ধা’ন্তকে সাধু’বা’দ জা’নিয়েছে পু’রো গ্রাম’বাসী। দু’জনে’রই ছেলে-মেয়ে ও নাতি-না’তনি আছে। তারাও উ’পস্থি’ত ছিলেন সেই বি’য়েতে। দুই প্রবী’ণের এক হওয়া’কে ঘিরে গ্রা’ম’জুড়ে চল’ছে আন’ন্দ উৎসব। নব’দম্প’তির দী’র্ঘায়ু কা’মনা করে দোয়া ও মি’ষ্টি বিতরণ করা হয়।

স’দ্য বিয়ে করা এ যু’গল হ’লেন না’টোর সদর উপজে’লার পু’কুর ডা’ঙ্গাপা’ড়া গ্রামের বৃদ্ধ আহা’দ আলী ও আ’মেনা বেগ’ম। এক যুগ আ’গে আ’হাদ আ’লীর স্ত্রী মা’রা’ গে’ছেন এবং আ’মেনা স্বা’মী’কে হা’রান প্রায় ১০ ব’ছর আগে। জীব’নের নিঃস’ঙ্গ’তা কাটা’তে বুধবার বি’য়ের ব’ন্ধনে আ’ব’দ্ধ হ’য়েছে’ন এই জুটি।

পা’ত্রীর বয়স ৮০ বছর, পাত্র ১০৫ বছ’রের। চা’ঞ্চল্য’কর এই বি’য়েতে ৫০ হা’জার ৬৫০ টাকা দে’নমো’হর ধা’র্য করা হয়। প’রে নগদ ৬৫০ টা’কা প’রিশো’ধিত দে’নমো’হ’রে ওই দ’ম্পতির বি’য়ে সম্প’ন্ন হয়। বি’য়ের ক’রার পর বৃ’দ্ধ পা’ত্রের মুখে ফো’টে ‘কো’টি টাকার হাসি’।


দি’ঘাপতি’য়া ইউ’পি চেয়া’রম্যান খন্দ’কার ওমর শ’রীফ চৌ’হান বলেন, বেশ ধু’ধা’ম ক’রেই বিয়ে’র কাজ সম্প’ন্ন হয়। এস’ময় স্থানী’য়রা চ’রম আ’নন্দে বিয়ে’র অ’নুষ্ঠান উপ’ভোগ করেন। পরে তা’রা নবদ’ম্পতি’র দী’র্ঘায়ু কাম’না করে দোয়া করেন এবং মিষ্টি বিতরণ করেন।

শত’ব’র্ষী বৃ’দ্ধা’র বিয়ে’তে গ্রা’মের প্রায় শ’তা’ধিক মানুষ উ’পস্থি’ত ছি’লেন। গ্রামের বাসি’ন্দা’রা জানালেন, পাত্র আ’হা’র চার ছে’লে ও তিন মেয়ে র’য়ে’ছে। তার নাতি-নাতনি থা’কলেও স্ত্রী না থাকা’র কার’ণে বৃ’দ্ধ বয়সে বে’শ একা’কী’ত্বে জীবন কা’টা’তেন আহাদ। হঠাৎ গ্রাম’বাসী’র অ’নুরো’ধে তিনি তার প্র’য়াত ছোট ভা’ই টুলু ‘মণ্ড’লের ”স্ত্রী আ’মেনা বেগ’মকে বি’য়ে করতে রা’জি হন।

এ’দি’কে শত’বর্ষী বর-কনে’র বি’য়ের খবর এলা’কা’য় এখন স’বার মুখে মু’খে ফির’ছে। প্রতি’বেশী’দের কেউ কে’উ খবর’টি বেশ ম’জা ক’রেই উপ’স্থা’পন কর’ছেন। আ’বার কেউ কেউ নি’ন্দু’কের সুরে প্র’চা”র করছেন। ত”বে এসব কানে নি’চ্ছে’ন না শত’ব’র্ষী আহা’দ আ’লী মণ্ড’ল ওর’ফে আ’দি। বরং তাদে’র দা’ম্পত্য জীব’নে’র শেষ মু’হূর্ত পর্য’ন্ত যা’তে ভালো সম’য় কাটে, সেজ’ন্য সবা’র কাছে দো’য়া চে’য়ে’ছেন তারা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*